1. [email protected] : RAFI Bhuiyan : RAFI Bhuiyan
  2. [email protected] : Crazy VFX Media : Crazy VFX Media
  3. [email protected] : riadxn riadxn : riadxn riadxn
নতুন চ্যানেলের ভিউ বাড়ানোর টিপস এন্ড ট্রিকস
ভিউ বাড়ানোর টিপস
RAFI Bhuiyan
  • 1 month ago
  • 316
নতুন চ্যানেলের ভিউ বাড়ানোর টিপস এন্ড ট্রিকস

সম্মানিত পাঠক বৃন্দ আমাদের আজকের আর্টিকেলের মূল আলোচ্য বিষয় হচ্ছে ইউটিউবে নতুন চ্যানেলে ভিউজ বাড়ানোর সেরা টিপস হ্যাঁ বন্ধুরা বর্তমান সময়ে এসে আমাদের মধ্যে অনেকেই রয়েছে যারা অনেকদিন যাবত ইউটিউব চ্যানেলে কাজ করছে ভিডিও আপলোড করে যাচ্ছে কিন্তু কোনোভাবেই তার চ্যানেলে ফিউজ আনতে পারছে না। আর তাই তারা প্রতিনিয়ত ডিপ্রেশনে চলে যাচ্ছে যে এত কষ্ট করে ভিডিও বানাচ্ছে কিন্তু কোন ভিউজ পাচ্ছে না।

আর তাই আজ আমি আপনাদের সুবিধার্থে ইউটিউবে নতুন চ্যানেলে ভিউজ বাড়ানোর ৬ টি নিনজা টেকনিক বলে দিব যেগুলো এপ্লাই করে খুবই তাড়াতাড়ি এবং রাতারাতি আমি আপনার চ্যানেলকে মন্টেস করতে পারবেন এবং অনেক বেশি ভিউজ আপনার চ্যানেলে নিয়ে আসতে পারবেন। তাই আপনারা যারা ইউটিউবে কন্টেন্ট ক্রিকেটার রয়েছেন তাদের জন্য আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি খুবই মূল্যবান হতে চলেছে।

নতুন চ্যানেলের ভিউ বাড়ানোর টিপস

এতদিন পর্যন্ত যারা অনেক কষ্ট করেও আপনার চ্যানেলের জন্য কোন ভিউজ আনতে পারেননি দিনের পর দিন 50 থেকে 100 এর উপরে ভিডিও আপলোড করে ফেলেছেন কিন্তু এখনো পর্যন্ত চ্যানেল মনিটাইজ করতে পারেননি বা তেমন কোন রেসপন্স পাচ্ছেন না কোন ভিউজ পাচ্ছেন না তাদের জন্য আমাদের আজকের আর্টিকেল খুবই হেল্পফুল হতে চলেছে আমরা নতুন চ্যানেলে ভিউজ বাড়ানোর ৬ টি টিপস জানব এই ৬ টি ট্রেক আপনার চ্যানেলে এপ্লাই করলে ১০০% আপনার ভিডিওগুলো বুস্ট হবে এবং আপনি বেশি বেশি ভিউজ পাবেন। চলুন তাহলে যেনে আসি সেই ৬ টি টিপস সম্পর্কে।

১. ইউটিউব চ্যানেল সার্চে আনুন

নতুন চ্যানেলে ভিউজ বাড়ানোর ৬ টি টিপস এর মধ্যে প্রথম টিপস হচ্ছে আপনার তৈরিকৃত ইউটিউব চ্যানেলটি সার্চে আনুন হ্যাঁ বন্ধুরা আপনি ঠিকই শুনেছেন কারণ আপনার চ্যানেলটি যদি স্যার চাই না আসে তাহলে ভিজিটর কিভাবে আপনার সম্পর্কে জানবে আর কিভাবেই বা আপনার চ্যানেলের ভিডিও দেখবে।

আপনি অন্যান্য বড় ইউটিউব চ্যানেলগুলো দেখলেই বুঝতে পারবেন যে তাদের চ্যানেলগুলোর নাম এমন ভাবে তারা এসইও করেছে যে তাদের চ্যানেলগুলোর নামের অর্ধিকাংশ লিখলেও তাদের চ্যানেলগুলো প্রথম পেজে চলে আসে তাই আপনার চ্যানেলটি যদি ভাইরাল করতে চান বা বেশি বেশি জানতে চান আপনার ভিডিওগুলোতে তাহলে প্রথমে আপনাকে ইউটিউব চ্যানেল সার্চ জানতে হবে এবং এক নম্বর পেজে দেখাতে হবে।

অনেক সময় দেখা যায় আপনার চ্যানেলের নামে অনেকগুলো চ্যানেল তৈরি করা হয় যেগুলো ফেক চ্যানেল হয়ে থাকে কিন্তু সেই সবগুলো চ্যানেলকে টোপকে আপনার চ্যানেলটি সবার প্রথমে নিয়ে আসতে হবে আর তাহলেই আপনি প্রচুর পরিমাণে ভিউজ পেতে পারেন কারণ যদি একজন ইউজার আপনার চ্যানেলটির নাম সার্চ করে অন্য চ্যানেল পায় তাহলে আপনি কখনোই ভিউজ পাবেন না আর যদি সার্চ করে প্রথমে আপনার চ্যানেলটি পেয়ে যায় তাহলে সে অবশ্যই আপনার ভিডিওগুলো একবার হলেও প্লে করে দেখবেন।

তাই আপনার চ্যানেলটি ইউটিউবের প্রথম পেজে জানার জন্য প্রথমে চলে যাবেন আপনার ক্রিয়েটর স্টুডিওতে এবং সেখান থেকে সেটিংসে চলে যাবেন এবং সেটিংস অপশন থেকে channel নামের একটি অপশন দেখতে পাবেন সেখানে ক্লিক করুন এবং নিচের দিকে একটি বক্স আকারে দেখতে পাবেন সেখানে আপনি প্রচুর পরিমাণে কিওয়ার্ড বসাতে পারবেন আর এটাই হচ্ছে টেকনিক।

এই চ্যানেল অপশনটিতে আপনি আপনার চ্যানেলের নাম অনুযায়ী এবং আপনার চ্যানেলের ধরন অনুযায়ী আপনি যেই নিশ নিয়ে কাজ করেন বা আপনি যেই ক্যাটাগরির ভিডিও তৈরি করেন ওই ক্যাটাগরি রিলেটেড যত কিওয়ার্ড রয়েছে সবগুলো কিওয়ার্ড বসিয়ে দিন এখানে সর্বোচ্চ ৫০০ ওয়াট পর্যন্ত বসাতে পারবেন তাই প্রথমদিকে আপনার চ্যানেলের নামটি অনেক কয়বার বসিয়ে দিন এবং কিছু কিছু ভাগে বিভক্ত করে বসে দিন যাতে ভুল ভাবে সার্চ করলেও যেন আপনার চ্যানেলটি সবার প্রথমে চলে আসে।

আর এই জায়গা যদি আপনি ভালোভাবে কিওয়ার্ড বসাতে পারেন এবং ভালোভাবে এসিও করতে পারেন তাহলে কয়েকদিনের মধ্যেই আপনি আপনার চ্যানেলটি প্রথম পেজে পেয়ে যাবেন এবং সার্চ করার সাথে সাথে আপনার চ্যানেলটি এক নম্বরে চলে আসবে এবং আপনি প্রচুর পরিমাণে ভিউজ পেতে শুরু করবেন। তাহলে এবার দ্বিতীয় নাম্বার টিপস দেখে আসি।

2. ভিডিও শেয়ার করা থেকে বিরত থাকুন

বন্ধুরা আমাদের মধ্যে অনেকেই রয়েছে যারা ভিডিওগুলো বন্ধু-বান্ধবের মাঝে প্রচুর পরিমাণে শেয়ার করে যেমন আপনি যদি একজন নতুন ইউটিউবার হয়ে থাকেন তাহলে আপনি হয়তো আপনাদের বন্ধুদেরকে বলেন যে বন্ধু তোরা আমার ভিডিওটি দেখ আর এজন্য আপনি আপনার বন্ধুদের মাঝে আপনার ভিডিও গুলো শেয়ার করেন কিন্তু আপনার বন্ধুরা কি করে তারা আপনার ভিডিওটা প্লে করার সাথে সাথে আবার স্কিপ করে কেটে দেয়। আর এখানেই আপনি সবচেয়ে বড় ভুলটি করছেন।

কারণ সবসময় মনে রাখবেন ইউটিউব আপনার চ্যানেলের উপর সবসময় নজরদারি রাখে এবং আপনার চ্যানেলের ভিউয়াররা কেমন বিহাভিয়ার করছে সে সম্পর্কে দেখে যেমন আপনার ভিউয়াররা যদি আপনার ভিডিওটি একটু দেখেই সাথে সাথে কেটে দেয় যেমন আপনার ভিডিও যদি হয় ১০ মিনিটের সেখানে যদি একটি ভিজিট ৩০ সেকেন্ড ভিডিওটি দেখে কেটে দেয় তাহলে বুঝবেন আপনার ভিডিওটি কখনোই ইউটিউব প্রমোট করবে না।

তাই আপনার ভিডিওটি যখন আপনাদের বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করেন তখন আপনার বন্ধুরা দশ মিনিটের ভিডিওটি মাত্র ৩০ সেকেন্ড দেখেই কেটে দেয় আর এজন্য ইউটিউব মনে করে এই ভিডিওটিতে তেমন কোনো ভালো জিনিস নেই আর এজন্য মূলত আপনার ভিডিওটিতে আরো ডাউন করে দেয়।

তবে এখানে আপনি একটি টেকনিক কাজে লাগাতে পারেন আপনি আপনার ফোনে অনেকগুলো জিমেইল তৈরি করে সেই জিমেইলগুলো দিয়ে আপনার ভিডিওগুলো প্লে করে ওয়াচ টাইম নিতে পারেন আর ইউটিউব সব সময় ওয়াচ টাইম এর উপর বেশি নজর দেয় আপনার ভিডিওতে যত বেশি ওয়াচ টাইম হবে তত বেশি মানুষের কাছে আপনার ভিডিওটি পৌঁছাবে। 

ইউটিউব মনে করবে আপনার ভিডিওতে যেহেতু প্রচুর পরিমাণে ওয়াচ টাইম হচ্ছে তাহলে আপনার ভিডিওতে হয়তো ভালো কিছু রয়েছে তাই বেশি বেশি মানুষের কাছে পাঠাবে এবং আপনার ভিডিওটি অনেক বেশি ভাইরাল হয়ে যাবে এবং অনেক বেশি ফিউজ পেতে শুরু করবেন চলেন আমরা এবার তিন নাম্বার টিপস দেখে আসি।

৩. ভিডিও টাইটেল অনুযায়ী কম্পিটিটর চেক করুন

কম্পিটিটর চেক করা শুনে অবাক হচ্ছেন.!! অবাক হওয়ার কিছুই নেই কারণ আপনি যে রিলেটেড ভিডিও পাবলিশ করছেন সেই রিলেটেড হয়তো প্রচুর পরিমাণে ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে বা তারাও সেই একই রিলেটেড ভিডিও তৈরি করে তাই আপনার প্রয়োজন আপনার রিলেটেড যারা ভিডিও তৈরি করে এবং যারা বর্তমানে ভালো পর্যায়ে রয়েছে এবং প্রচুর পরিমাণে ভিউজ পাচ্ছে আপনি তাদেরকে টার্গেট করুন।

হ্যাঁ বন্ধুরা আপনি যে রিলেটেড ভিডিও ইউটিউবে পাবলিশ করছেন সে রিলেটেড যেই চ্যানেলগুলো রয়েছে তাদের চ্যানেলগুলো দেখুন এবং তাদের ভিডিওতে কেমন ভিউজ পাচ্ছে সেটি চেক করুন যে ভিডিওগুলোতে বেশি বেশি ভিউজ পাচ্ছে সেই ভিডিওটি বেশি বেশি দেখুন এবং তাদেরকে বুঝতে চেষ্টা করুন যে তারা ভিডিওতে কি বলছে এবং কি টেকনিক অ্যাপ্লাই করছে সেই বিষয়টি খেয়াল রাখুন।

এবং আপনার এলিমেন্ট চ্যানেলগুলোর উপর যখন আপনি খেয়াল রাখবেন এবং তারা কিভাবে ভিডিও বানায় এবং কিভাবে কথা বলে সেই সম্পর্কে যখন নজরদারি রাখবেন তখন নিজেই বুঝতে পারবেন যে কেমন ভিডিও বানালে আপনার ভিডিওটি ভাইরাল হতে পারে আর অবশ্যই তাদের থেকে একটু ভালো ভিডিও বানানোর চেষ্টা করবেন তাহলে দেখবেন ইউটিউব নিজেই আপনার ভিডিওটিকে মানুষদের মাঝে পৌঁছে দিবে।

৪. ভিডিও কোয়ালিটি ঠিক রাখুন

বন্ধুরা এখন ২০২৩ সাল আর এই ২৩ সালে এসে যদি আপনার ভিডিও কোয়ালিটি অনেকটা খারাপ হয় তাহলে আপনার ভিডিওগুলো কেউ দেখে ভালো লাগবে না আপনি নিজের কথায় চিন্তা করুন আপনি যদি একটি ভিডিও প্লে করেন আর সেই ভিডিওটি দিয়ে যদি কোয়ালিটি খারাপ থাকে ভিডিওটি দেখতে ভালো না লাগে ভোলা সেলা সে দেখায় তাহলে আপনি নিজেই তো সেই ভিডিওটি করে যাবেন।

অনেকে মনে করে ভিডিও কোয়ালিটি বলতে ডিএসএলআর ক্যামেরা লাগবে বা ভালো লাইটিং লাগবে আরো কত কিছু আসলে ভিডিও কোয়ালিটি বলতে এমনটি বোঝানো হয়নি আপনি চাইলে আপনার মোবাইল দিয়েও ভালো কোয়ালিটির ভিডিও তৈরি করতে পারেন এজন্য মোটামুটি একটি ক্যামেরা হলেই হবে এবং সবচেয়ে বেশি নজর দিতে হবে আপনার ভিডিওর ভয়েস কোয়ালিটির দিকে।

কারণ ইউটিউব হচ্ছে ভিডিও এবং ভয়েস দুটোই মাধ্যম কারণ আপনার ভিডিওর পাশাপাশি আপনার ভয়েস যদি ক্লিয়ার না হয় তাহলে কখনোই একজন ভিউয়ার আপনার ভিডিওটি দেখবেনা সাথে সাথে স্কিপ করে চলে যাবে যেমনটি আপনি নিজেও করেন অন্যের ভিডিওতে যদি ভয়েস কোয়ালিটি ঠিক না থাকে আপনি তাদের ভিডিও কখনোই দেখেন না আর এটাই স্বাভাবিক তাই অবশ্যই ভিডিও কোয়ালিটির দিকে নজর রাখবেন।

৫. ভিডিও প্রমোট করুন

আমাদের আজকের আর্টিকেলে উপরের দিকে দেওয়া সবগুলো টিপস এপ্লাই করার পরেও যদি আপনার চ্যানেলে কোনভাবেই ভিউজ আনতে না পারেন তাহলে লাস্ট চান্স হিসাবে আপনি একটি বিষয়ে এপ্লাই করতে পারেন আর সেটি হচ্ছে ভিডিও প্রমোট করা হ্যাঁ বন্ধুরা আপনি আপনার ইউটিউবের নতুন চ্যানেলে ভিউজ বাড়ানোর জন্য ভিডিওগুলো প্রমোট করতে পারেন আর ভিডিও প্রমোট করার জন্য গুগলের নিজস্ব প্ল্যাটফর্ম Google Adword ব্যবহার করতে পারেন আর এটি যেহেতু তাদের নিজস্ব প্রোডাক্ট তাই এখান থেকে ভিউজ আনলে আপনার চ্যানেলে কোন ধরনের খারাপ ইফেক্ট পরবে না।

তাই আপনি যদি আপনার ভিডিওটি ভাইরাল করতে চান তাহলে উপরের টিপস গুলো এপ্লাই করার পরেও যদি ভাইরাল না হয় তাহলে গুগল এডওয়ার্ড ব্যবহার করে কিছু টাকা খরচ করে আপনার ভিডিওটিকে পোস্ট করুন এবং যখন মানুষের কাছে বুষ্টের মাধ্যমে ভিডিওটি চলে যাবে তখন যদি কিছু ওয়াচ টাইম কাউন্ট হয় ওই ওয়াচ টাইমের মাধ্যমে ইউটিউব মনে করবে এই ভিডিওটি হয়তোবা ভালো তাই এই ভিডিওটি বেশি সময় ধরে মানুষ দেখছে আর তখন ভিডিওটি পোস্ট করা ছাড়াই আরও বেশি মানুষের কাছে পাঠাবে এবং আরও বেশি ভিউজ পেতে শুরু করবেন।

তাই ইউটিউবের নতুন চ্যানেলে ভিউজ বাড়ানোর জন্য গুগল এডওয়ার্ডের সাহায্য নিতে পারেন আর এখান থেকে প্রচুর পরিমাণে ইউজুবার রয়েছে যারা তাদের ভিডিওগুলো প্রমোট করে এবং কোটি কোটি ভিউস কিনে নিচ্ছে।

৬. YouTube shorts নিয়ে কাজ করুন

ইউটিউবের নতুন চ্যানেলে ভিউজ বাড়ানোর সবশেষ টিপস টি হচ্ছে youtube shorts ভিডিও আপলোড করা, হ্যাঁ বন্ধুরা আপনি ঠিকই শুনেছেন বর্তমান সময়ে ইউটিউব tiktok ফেসবুক সব জায়গায়ই শর্টস বিষয়টি খুবই বেশি চলে কারণ টিক টক অ্যাপটি বানানো হয়েছে শুধুমাত্র ইউটিউব শর্ট ভিডিওর মতন ভিডিও তৈরি করার জন্য আর বিলিয়ন বিলিয়ন মানুষ tiktok এর এই ভিডিও দেখছে।

তারই ধারাবাহিকতায় youtube নিয়ে আসলো youtube shorts যারা ইউটিউব চালায় এমন কোন মানুষ নেই যে কিনা youtube shorts video দেখেনা তাই আপনি তাদের ভিডিওগুলো চেক করলেই দেখতে পাবেন তারা মাত্র ৩০ সেকেন্ড বা এক মিনিটের ভিডিও বানিয়ে কোটি কোটি ভিউস নিয়ে নিচ্ছে তাই বুঝতে পারছেন আপনার মেইন ভিডিওর চেয়েও ইউটিউব শর্ট ভিডিওর উপর বেশি নজর দিচ্ছে এবং খুবই রাতারাতি youtube শর্ট ভিডিওগুলোকে ভাইরাল করে দিচ্ছে।

তাই আপনি চাইলে নতুন একটি চ্যানেল ক্রিয়েট করে ইউটিউবে youtube shorts ভিডিও আপলোড করতে পারেন অথবা চাইলে আপনার যেই চ্যানেলে বড় ভিডিও আপলোড করেন ওই চ্যানেলেই ইউটিউব shorts video আপলোড করতে পারেন আর আপনার একটি শর্ট ভিডিও যখন ভাইরাল হয়ে যাবে তখন ওই শর্টস ভিডিওর মাধ্যমে আপনার মেইন ভিডিওতেও ভিউজ চলে আসবে।

আর এখন থেকে আপনি ইউটিউব শর্টস ভিডিওর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন কারণ বর্তমান সময়ে হয়তো বা শর্টস ভিডিওতে কোন এড আসে না কিন্তু খুব তাড়াতাড়ি ইউটিউব জানিয়ে দিয়েছে তাদের শর্ট ভিডিওগুলোতেও তারা এড চালাবে এবং তাদের ক্রিয়েটর যারা রয়েছে তারা সেই শর্টস ভিডিও থেকেও অ্যাড দেখিয়ে ইনকাম করতে পারবেন।

শেষ কথা

সম্মানিত পাঠক বৃন্দ আমাদের আজকের আর্টিকেলে ইউটিউবে নতুন চ্যানেলে ভিউজ বাড়ানোর সেরা ৬‌টি‌ টিপস নিয়ে আলোচনা করেছি আপনি যদি এই ছয়টি টিপস আপনার চ্যানেলের উপর এপ্লাই করেন আমি হান্ড্রেড পার্সেন্ট গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি আপনার চ্যানেলে ভিউজ আসবেই আসবে। তাই আপনি যদি একজন কন্টেন্ট ক্রিকেটার হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আমাদের আজকের আর্টিকেলে আলোচিত ছয়টি পদ্ধতি আপনার চ্যানেলের উপর এপ্লাই করুন এবং দেখবেন খুব রাতারাতি আপনার ভিডিওগুলো ভাইরাল হয়ে যাচ্ছে।

আর আপনার চ্যানেলটি যদি একবার কোনোভাবে ভাইরাল হয় এবং আপনার চ্যানেলের কোন একটি ভিডিও যদি একবার ভাইরাল হয় তাহলে দেখবেন পরবর্তীতে আপনি যত ভিডিও আপলোডিং করবেন প্রতিটা ভিডিওতেই আগের থেকে অনেক বেশি ভিউজ পেতে থাকবেন এবং অনেক তাড়াতাড়ি আপনার সাবস্ক্রাইবার বেড়ে যাবে।

আশা করি নতুন চ্যানেলে ভিউজ বাড়ানোর সেরা টিপস গুলো আপনার কাছে ভালই লেগেছে যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে ভুলবেন না এবং ইউটিউব টিপস এন্ড টিপস সম্পর্কে আরো জানতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ভিজিট করতে পারেন আমরা প্রতিনিয়ত ইউটিউবে টিপস এন্ড টিপস সম্পর্কে আলোচনা করে থাকি। এতক্ষণ পর্যন্ত আমাদের আর্টিকেলটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন আল্লাহ হাফেজ।

RAFI Bhuiyan
আমার নাম বিএম রাফি। বর্তমানে আমি প্রফেশনালি ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ করি। আমি Bangladesh Gamer ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আমার গেম খেলার অনুভূতি আপনাদের মাঝে শেয়ার করি। পাশাপাশি নতুন গেমিং মোবাইল ও নতুন গেমিং ল্যাপটপ অথবা গেমিং পিসি বিল্ড সম্পর্কে আমার ভালো ধারনা আছে। আমার ধারণা আমি আপনাদের মাঝে শেয়ার করি।